আজ ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দেবহাটায় পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৪

মাহমুদুল হাসান শাওন: দেবহাটার গাজীরহাটে পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষ ও মারপিটে ৪ জন আহত হয়েছে। আহতরা হলেন, দেবহাটার কালাবাড়ীয়া গ্রামের মৃত ফজর আলী বদ্দির ছেলে শফিকুল বদ্দি (৫৭), তার ছেলে মুকুল হোসেন (২৫), নওয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য নুরুজ্জামান সরদার (৪০) ও সাংবাড়িয়া গ্রামের আব্দুলের ছেলে এবাদুল ইসলাম। রবিবার বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে গাজীর হাট বাজারে এঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্য থেকে শফিকুল বদ্দি ও তার ছেলে মুকুল হোসেন বর্তমানে সখিপুরস্থ দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শফিকুল বদ্দি জানায়, নওয়াপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বর নুরুজ্জামান সরদারের কাছে ৮৫ হাজার এবং মিজানুরের কাছে ৭ হাজার টাকা পান তিনি। রবিবার বিকাল ৩টার দিকে পাওনা টাকা চাইতে মেম্বর নুরুজ্জামানের বাড়ীতে যান তারা। এঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে পরে বিকাল ৫ টার দিকে গাজীর হাট বাজারে অবস্থানকালে মেম্বর নুরুজ্জামান, মিজানুর রহমান, জগন্নাথ পুরের শামছুর সরদারের ছেলে লিটন সরদার ও এবাদুল সদলবলে তাদের ওপর লোহার রড, বাশ ও কাঠের লাঠি নিয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাদেরকে এলোপাথাড়ি মারপিট করে। এদিকে ইউপি সদস্য নুরুজ্জামান সরদার জানান, শফিকুল বদ্দির ভাই হামিদুল তার স্ত্রীকে ডিভোর্স দেয়া সংক্রান্ত বিষয়ে গত ২৭ তারিখ ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ দায়ের করলে শালিস-মিমাংসার জন্য ঈদের পর দিন নির্ধারন করা হয়। এঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে রবিবার বিকালে শফিকুল বদ্দি ও তার ভাই হামিদুল দলবল নিয়ে তার বাড়ীতে গিয়ে পরিবারের লোকজনদের শাসিয়ে আসে। এসময় বাড়ীতে ছিলেন না নুরুজ্জামান। পরে সন্ধ্যার আগে গাজীরহাট বাজারে এসে শফিকুল বদ্দি ও তার লোকজনদের কাছে মেম্বরের বাড়ীতে গিয়ে শাসিয়ে আসার ঘটনা জানতে চাইলে তারা মেম্বর নুরুজ্জামানকে লাঞ্চিত করে। এঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকার লোকজনদের সাথে মারপিটের ঘটনাটি ঘটে। এঘটনায় তিনি সহ তার দুজন সমর্থক আহত হয়েছে বলে দাবী করেন ইউপি সদস্য নুরুজ্জামান সরদার। এব্যাপারে দেবহাটা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) উজ্জল কুমার মৈত্র জানায়, পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিয়ে দুপক্ষের মিমাংসার জন্য ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মুজিবর রহমানের সাথে কথা হয়েছে। এব্যাপারে এখনো কেউ পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: