আজ ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

বড়দলে জমে উঠেছে ঈদের বাজার

বড়দল প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বড়দল হাটে জমে উঠেছে ঈদের বাজার। ছোট ছোট গোলি আর ফুটপাতে হাঁটতে গিয়ে ভিড়ের কারণে প্রত্যেকেই যেন হাঁপিয়ে উঠছেন। তবে থেমে নেই, সবাই ছুটছেন পছন্দের পোশাকের সন্ধানে। দোকান গুলোতে রয়েছে ক্রেতাদের ভিড়। ভিড়ের কারণে ক্রেতার সঙ্গে বেশিক্ষণ কথা বলারও সুযোগ পাচ্ছেন না বিক্রেতারা। এর মধ্যেই পছন্দের কাপড় কিনছেন ক্রেতারা। সাপ্তাহিক রবিবার (২৬ মে) ২০ রমজানে বড়দল হাটে এ চিত্র দেখা যায়। দোকানি ও ক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রতি রমজানে সাধারণত এ সময় থেকেই ঈদের কেনাকাটা পুরোদমে শুরু হয়। এখন থেকে দিন যত যাবে, ভিড় তত বাড়তে থাকবে। এখন যতটুকু দাম-দর করে কাপড় কেনার সুযোগ থাকছে, পরে সে সুযোগও থাকবে না। ঈদের বাকি প্রায় ১০ দিনের মতো। ঈদের আগ মুহূর্তে কেনাকাটা করতে গেলে নানা ভোগান্তি পোহাতে হয় বলে অনেকেই এখনই কেনাকাটা সেরে ফেলছেন। ঈদের বাকি এখনও বেশকিছু দিন, এখনই আসা প্রসঙ্গে আঃ আলিম নামে এক ক্রেতার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আজকেই বেটার (ভালো) মনে হয়েছে। ঈদের আগে আরাকটা রবিবারের হাট পড়বে সেদিন তো ভিড় হবে। বড়দলের হাট ঘুরে দেখা যায়, মেয়েদের পোশাকের দোকানে তুলনামূলক ভিড় বেশি। তাদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলেই বলে দিচ্ছেন, ব্যস্ততার কারণে কথা বলার মতো সময় নেই। তবে ক্রেতাদের উপস্থিতি থাকলেও দোকানিদের দাবি বেচাকেনা তুলনামূলকভাবে ভালো না। গত বছরের চেয়ে এবার বেচাকেনা খারাপ। মার্কেটে মানুষ আসছে, কিন্তু বেচাকেনা কম। কিনতে আসছেন একজন, কিন্তু সঙ্গে চার-পাঁচজন করে আসছেন। দোকানদাররা আশাকরছে সামনের শেষ হাটে বেচাকেনা ভালোহবে। এদিকে ইউনিয়নের গোয়ালডাঙ্গা বাজারে ক্রেতাদের উপস্থিতি তুলনামূলক কম দেখা গেছে। তবে ঈদের যেহেতু বেশ কিছুদিন বাকি তাই সামনের দিন গুলোতে ক্রেতাদের উপস্থিত বাড়বে এবং ভালো বেচাকেনা হবে বলে আশা করছে দোকানদাররা।

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: