আজ ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সুন্দরবনে প্রবেশ নিষেধাজ্ঞায়,বিপাকে অসহায় জেলেবাউলিয়া।

মোস্তফা কামাল শ্যামনগর: ঐতিহাসিক ম্যানগ্রোভ তথা সুন্দরবনে নিষেধাজ্ঞা জারিতে, সুন্দরবনের এক শ্রেণির অসাধু জেলে চক্র অবাধে বিষ প্রয়োগ করে যাবতীয় মাছ ধ্বংস করার কারনে বন অধিদপ্তর সুন্দরবনে প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা করে পরিপত্র জারি করেছে। এইতথ্য নিশ্চিত করেছেন সাতক্ষীরা রেঞ্জ কর্মকর্তা জিএম রফিক আহমেদ। তিনি গতকাল এই প্রতিবেদককে জানান, শুধুমাত্র পর্যাটক ছাড়া সব ধরনের বনজীবিদের সুন্দরবনে প্রবেশে সরকার নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।

যার কারনে গতকাল থেকে বনজীবিদের সব ধরনের পাশ-পারমিট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যে সমস্ত মৎস্যজীবিরা সুন্দরবনের ভিতরে আছে তাদের পারমিটে সরকারি বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে লোকালয়ে আসতে বলা হয়েছে। অন্যথ্যায় তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বন বিভাগের বিভিন্ন সুত্র জানিয়েছে,গত কয়েক বছর ধরে এক শ্রেণির অসাধু চক্র সুন্দর বনে বিষ প্রয়োগ করে মাছ শীকার করে আসছে। যা গণমাধ্যমে নিয়মিত প্রকাশ পাওয়ায় সভা-সেমিনার করেও বন্ধ করতে না পারায় বন অধিদপ্তর কর্তৃক অনির্দিষ্ট  কালের জন্য পর্যাটক ছাড়া অন্য সব ধরনের বনজীবিদের সুন্দরবনে প্রবেশ করা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। স্থানিও জেলেরা এ ব্যাপারে প্রত্যাহ-বার্তাকে জানান, আমরা গরিব মানুষ, সুন্দদবনে কাঁকড়া সংগ্রহ করে জীবিকা অর্জন করি।মাছ ধরা কিছু অসাধু জেলেদের পারমিট বন্ধের সাথে-সাথে আমাদের কাঁকড়া ধরার পারমিট বন্ধ করে দিয়েছে,জীবীকা নির্বাহ না করতে পেরে পারিবারিক ভাবে আর্থিক সংকটে আছি। গতকাল এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জানা যায় এখনও পশ্চিম সুন্দরবনের ভিতরে প্রায় ৫শতাধিক বৈধ জেলে-বাওয়ালী অবস্থান করছিলো। তাদের ফিরিয়ে আনার জন্য বন বিভাগ ও স্থানীয় জন প্রতিনিধিরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: