আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শ্যামনগরে ভাব বাংলাদেশের শিক্ষা বৃত্তি ও শিক্ষকদের সম্মানী প্রদান

আব্দুল আলিম, স্টাফ রিপোর্টারঃ স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ভলান্টিয়ার্স এসোসিয়েশন ফর বাংলাদেশ (ভাব-বাংলাদেশ) এর আয়োজনে বুধবার সকাল ১১টায় শ্যামনগর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে সুবিধা বঞ্চিত শিক্ষার্থীকে বৃত্তি ও অতিরিক্ত ক্লাসের সম্মানী এবং ফুটবল প্রশিক্ষণের জন্য প্রশিক্ষককে সম্মানী প্রদান করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার রোটারি ক্লাব অব হুইলার্স হিলের সৌজন্যে শ্যামনগর সরকারি মহসিন ডিগ্রি কলেজের ২ জন এবং নওয়াবেঁকী ডিগ্রি কলেজের ২জন সুবিধাবঞ্চিত  মেধাবী শিক্ষার্থীকে প্রতিমাসে ২,০০০ টাকা করে এককালীন ৩ মাসের টাকা প্রদান করা হয়েছে।  এছাড়া ৫টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১০০জন শিক্ষার্থীর জন্য বৃত্তির চেক, ১৫টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ফুটবল প্রশিক্ষণের সম্মানী এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের সহযোগিতায় ৪টি স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণির অতিরিক্ত ক্লাসের গণিত ও ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষকদের সম্মানী প্রদান করেন প্রধান অতিথি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আকরাম হোসেন খান। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার মিনা হাবিবুর রহমান, ভাব-বাংলাদেশের সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার এম. এ. আলিম খান, সাংবাদিক রনজিৎ বর্মন । বৃত্তির চেক গ্রহণ করেন রমজাননগর ইউনিয়ন তোফাজ্জেল বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক শেখ মতিউর রহমান, ত্রিপানি বিদ্যাপীঠের প্রধান শিক্ষক মোঃ আবুল কালাম মল্লিক, ভেটখালী এ করিম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গাজী নজরুল ইসলাম, ঝাঁপা ব্রজবিহারী ইউনাইটেড মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পুলিন চন্দ্র মন্ডল, ঈশ্বরীপুর এ সোহবান মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নজরুল ইসলাম। বাংলাদেশ ব্যাংকের সহযোগিতায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির অতিরিক্ত ক্লাসের সম্মানী গ্রহণ করেন কাঁঠালবাড়িয়া এজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আজাহারুল ইসলাম, হেঞ্চি বঙ্গবন্ধু মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ লুৎফুল আলম, শওকতনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক স্বপন কুমার বাউলিয়া ও চিংড়াখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দীনবন্ধু। অস্ট্রেলিয়ার রোটারি ক্লাব অব হুইলার্স হিলের সৌজন্যে কলেজ বৃত্তি গ্রহণ করেন শ্যামনগর সরকারি মহসিন ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী মোঃ নাইম হোসেন ও কৃষ্ণা রানী মন্ডল, নওয়াবেঁকী ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী রহিমা আক্তার  এবং সুন্দরবন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী পূর্নিমা সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: