আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দেবহাটায় প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন সা: সম্পাদক প্রার্থী আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম

দেবহাটা প্রতিনিধি: দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে সামনে রেখে বর্তমানে প্রচারনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন সাধারন সম্পাদক পদপ্রার্থী সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও ব্যবসায়ী আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম। প্রার্থীতা ঘোষনার পর ইতোমধ্যেই নির্ধারিত মুল্যে উপজেলা সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির থেকে ভোটাধিকার প্রয়োগে সক্ষম কাউন্সিলরদের তালিকা সংগ্রহ করেছেন তিনি। অবিরাম ছুটে চলেছেন উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে প্রত্যেক কাউন্সিলরদের কাছে। কাউন্সিলর ছাড়াও সার্বক্ষনিক মতবিনিময় করছেন দলের তৃনমুল পর্যায়ের অবহেলিত ও সুবিধা বঞ্চিত ত্যাগী নেতাকর্মীদের সাথে। মঙ্গলবার দিনব্যাপী তিনি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় কাউন্সিলরদের সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় দলের নিবেদিত নেতাকর্মীদের সুবিধা-অসুবিধার কথা শোনার পাশাপাশি আগামীতে একটি সুসংগঠিত উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব উপহার দেয়ার আশ্বাস দেন তিনি। সাথে সাথে দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগকে দুর্নীতিমুক্ত স্বচ্ছ রাজনৈতিক প্লাটফর্ম বিনির্মানে কাউন্সিলরদের স্বতষ্ফুর্ত সমর্থন ও মুল্যবান ভোট চান তিনি। এসময় দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংষ্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল আজিজ, জাতীয় শ্রমিক লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম, যুবলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সাইফুজ্জামান প্রিন্স, ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুজ্জামান সাদ্দাম, শহিদুল ইসলাম বাবু সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দরা সাধারন সম্পাদক প্রার্থী আলহাজ্ব রফিকুল ইসলামের সাথে উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলন প্রসঙ্গে সাধারন সম্পাদক প্রার্থী আলহাজ্ব রফিকুল ইসলাম বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনকে ঘিরে ইতোমধ্যেই দলের তৃনমুল নেতাকর্মীরা প্রানচাঞ্চল্য ফিরে পেয়েছেন। দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা সাংগঠনিকভাবে একটি পরিবর্তন ও নতুন নেতৃত্ব চায়। ত্যাগী ও সুবিধা বঞ্চিত নেতাকর্মীরা আসন্ন সম্মেলনে ভোটের মাধ্যমে নেতৃত্বে পরিবর্তন সহ মজবুত নেতৃত্ব ও নেতা নির্বাচনে উদ্যোমী। জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষনা অনুযায়ী স্বচ্ছ, সৎ ও যোগ্য নেতৃত্ব তৈরির মাধ্যমে সংগঠনকে দুর্নীতিমুক্ত করতে কাউন্সিলররা ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন। দীর্ঘদিন সম্মেলন না হওয়ায় আওয়ামী লীগের বহু ত্যাগী ও পরিক্ষিত নেতাকর্মী আজ নিরুৎসাহিত হয়ে পিছিয়ে পড়েছে। আশা করি আসন্ন সম্মেলনের মাধ্যমে আবারো দলের ত্যাগী নেতাকর্মীরা তাদের সুসময়-দুঃসময়ের যোগ্য কান্ডারীকে নির্বাচিত করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: