আজ ৮ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

জেলা বিএনপি’র পরিচিতি সভায় আহ্বায়ক কমিটির ৩৫ জনের মধ্যে ৭ জন উপস্থিত

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: জেলা বিএনপি’র পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার দুপুরে শহরের আমতলা এলাকায়  নিরিবিলি কমিউনিটি সেন্টারে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। তবে এ সভা ৩৫ জন আহ্বায়ক কমিটির মধ্য মাত্র ৭জন উপস্থিত ছিলেন। আন্দোলনে ঝিমিয়ে পড়া সাতক্ষীরা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি নিয়ে তৃণমূলে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। বিতর্কিতদের দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি করায় তৃণমূলে ক্ষোভ এবং নেতাকর্মীদের মাঝে অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। কমিটি গঠনের পর থেকে ফুঁসে উঠছেন নেতাকর্মীরা। বিভিন্ন গ্রুপ-উপগ্রুপে চলছে গোপন বৈঠক। ফলে তৃণমূল নেতাকর্মীরা বিক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠতে পারেন, জানিয়েছে দলীয় সূত্র।গত ১১ ডিসেম্বর অনুমোদন পাওয়া সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি ৩৫ সদস্য বিশিষ্ট হলেও গত ১৬ ডিসেম্বর জেলা বিএনপির উদ্যোগে মহান বিজয় দিবসের আলোচনা সভায় ৩৫ সদস্যের মধ্যে ৭ জন উপস্থিত ছিলেন বলে সূত্র জানায়। তবে আজকের পরিচিতি সভায় ও একই অবস্থা দেখা মিলল। তাহলে বাকি সদস্যরা কি এই কমিটি মানেন না? নাকি আহবায়ক কমিটির নেতৃত্বে যারা আছেন সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করছেন না। এমন প্রশ্ন এখন বিএনপি সমর্থিত নেতাকর্মীদের মাঝে বিরাজ করছে। পরিচিতি  সভায় উপস্থিত ছিলেন আহ্বায়ক সৈয়দ ইফতেখার আলী, সদস্য সচিব আব্দুল আলীম এবং হাবিবুর রহমান হবি, মোদাচ্ছেরুল হক হুদা, শের আলী,রুহুল কুদ্দুস,মহিউদ্দীন সিদ্দীকি। তাহলে ৩৫ সদস্যের মধ্যে সাতজন বাদে বাকি সদস্যরা কি জানেন না এই কর্মসূচি সম্পর্কে? নাকি তাদের অবহিত করা হয়নি?এমন প্রশ্নের হওয়ার কারণ জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা বিএনপি’র যুগ্ন-আহবায়ক বলেন, জেলা বিএনপি’র আহবায়ক  ইফতেখার সাহেবকে সাতক্ষীরার অধিকাংশ নেতাকর্মীরা এমনকি তৃণমূল পর্যায়ের কেউ পছন্দ করেন না। সাতক্ষীরায় আমান হত্যাকে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাকে কেন্দ্র করে  বিএনপি’র  উচ্চ পর্যায় থেকে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত নিজ দোষ নীড়, ৯০ জন নেতাকর্মীর নাম মিথ্যা দিয়ে সাতক্ষীরা জেলা বিএনপি’র কবর রচনা করেছেন। এবং ২০০৭/২০০৮ সালের তৎকালীন সংস্কারপন্থী নেতা সে জে বি এম পির আদর্শ দূরে দিয়ে,এটা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এবং শহীদ জিয়ার বেইমানি শামিল এ ধরনের কর্মকাণ্ড কারণে নেতা-কর্মীরা তাকে মেনে নিতে রাজি নন। তার প্রমাণ জেলা আহ্বায়ক  কমিটির ৩৫ জনের মধ্যে ৭ জন উপস্থিত।  এবারের আহ্বায়ক কমিটিতে বিতর্কিত অনেকেই ঠুকে পড়েছেন।এভাবে চলতে থাকলে দলের শৃঙ্খলা ফিরবে না। প্রকৃত ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন না হলে আগামী দিনে বিএনপি অস্তিত্ব সংকটে পড়তে পারে বলে মনে করেন রাজনীতিবিদরা।দলীয় সূত্রে জানা যায়, দ্রুত কাজ করার জন্য ক্ষণিক সময়ের জন্য ছোট করে আহ্বায়ক কমিটি করা হয়েছে। যদিও কেন্দ্রীয় নেতারা আহ্বায়ক কমিটি দিয়েছেন। তবে বিতর্কিদের ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানা যায়।এবিষয়ে জানতে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক সৈয়দ ইফতেখার আলীর সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: