আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

রিমান্ড শেষে ফের কারাগারে বহু অপকর্মের হোতা শেখ রানা

দেবহাটা প্রতিনিধি: দেবহাটা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সুমনকে অপহরণ চেষ্টার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার প্রধান আসামী, বহু অপকর্মের হোতা ও খুলনার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী শেখ রানা (৩৫) কে এক দিনের রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ফের কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সোমবার বিকালে রিমান্ডের সময়সীমা শেষে তাকে আবারো খুলনার কারাগারে প্রেরণ করে দেবহাটা থানা পুলিশ। রবিবার আদালত শেখ রানার একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করলে তাকে খুলনা কারাগার থেকে দেবহাটা থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। দেবহাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব কুমার সাহা বলেন, রিমান্ড চলাকালীন জিজ্ঞাসাবাদে শেখ রানার থেকে গুরুত্বপুর্ন তথ্য পেয়েছে পুলিশ। তবে তদন্তের স্বার্থে এখনই সবকিছু জনসম্মুখে প্রকাশ করা সম্ভব নয়। পুলিশের নির্ভরযোগ্য একটি সুত্রে জানা গেছে, অপহরণের ঘটনার মুল পরিকল্পনাকারী শেখ রানা খুলনার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী। সে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার বাইতাকান্দি গ্রামের শেখ ওমর আলীর ছেলে এবং কয়েক বছর ধরে খুলনায় বসবাস সহ সেখানে মাদক ব্যবসা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে জড়িত। তার স্ত্রীও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। অপহরণ ও মাদক চোরাচালানে তারা গড়ে তুলেছিলো সংঘবদ্ধ সক্রিয় একটি চক্র। দীর্ঘদিন ধরে খুলনার গন্ডি পেরিয়ে শেখ রানা এবং তার স্ত্রী নিজেদের সাংবাদিক ও পুলিশের সোর্স পরিচয় দিয়ে সাতক্ষীরাতেও মাদকের চোরাচালান ও অপহরণ সহ মানুষকে জিম্মি করে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে আসছিলো। সম্প্রতি তারা দেবহাটা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সুমনকে টার্গেট করে মোবাইলে ও ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে অপহরণের হুমকি সহ মোটা অংকের টাকা চাঁদা দাবী করে আসছিলো। কিন্তু তাদের দাবীকৃত চাঁদার টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে শেখ রানা ও তার দলবল ছাত্রলীগ সভাপতি সুমনকে অপহরণের চেষ্টা করে। শেখ রানার বিরুদ্ধে অপহরণ, চাঁদাবাজি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে খুলনার খালিশপুর, ফুলতলা ও দেবহাটা থানায় মামলা রয়েছে বলেও সুত্রটি নিশ্চিত করেছে। উল্লেখ্য, গত ১৯ জানুয়ারী রবিবার রাত ১১ টার দিকে পারুলিয়া আইডিয়াল অফিস সংলগ্ন এলাকা থেকে জোরপুর্বক একটি প্রাইভেটকারে করে দেবহাটা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সুমনকে অপহরণের চেষ্টা করে শেখ রানা সহ অন্যান্য সহযোগীরা। সেসময় ঘটনাস্থল থেকে আসিফ নামের এক অপহরণকারীকে স্থানীয়রা আটক পরবর্তী গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করতে সক্ষম হলেও প্রাইভেটকার সহ অন্যান্য সহযোগীদের নিয়ে পালিয়ে যায় শেখ রানা। ঘটনার পরদিন উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সুমন বাদী হয়ে অপহরণের ঘটনার মুলহোতা, পুলিশের তালিকাভুক্ত খুলনার অন্যতম সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী শেখ রানা, অপহরণকালে আটক অপর সহযোগী আসিফ সহ চার জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাতনামা কয়েকজনের বিরুদ্ধে দেবহাটা থানায় একটি মামলা (মামলা নং-৭) দায়ের করেন। পরবর্তীতে বৃহষ্পতিবার (৬ ফেব্রুয়ারী) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফুলতলা থানার যুগ্নিপাশা এলাকা থেকে ১শ বোতল ফেন্সিডিল, প্রাইভেটকার ও দুই সহযোগীসহ শেখ রানাকে গ্রেপ্তার করে খুলনা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সদস্যরা। পরে আদালত শেখ রানার রিমান্ড মঞ্জুর করলে তাকে দেবহাটা থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। রানাকে জিজ্ঞাসাবাদের আগে আটক অপর অপহরণকারী আসিফকেও রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। বর্তমানে সে সাতক্ষীরা জেলা কারাগারে রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: