আজ ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

আমা’র দুই মাসের বেশি জে’ল হবে না, জে’লে বসেই হুমকি

তিন মা’মলায় ১৫ দিনের রি’মান্ডে রয়েছেন যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নুর পাপিয়া ওরফে পিউ এবং তার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমন। একে একে বেরিয়ে আসছে তাদের অ’পকর্মের নানা কাহিনি, এতে সারাদেশে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। এরপরও তাদের দম্ভ কমছে না, জে’লে বসেই ছাড়ছেন হুঙ্কার।

‘আপনার টাকা দেব না, প্রতারণার মা’মলা দেবেন তো, ওই মা’মলায় দুই মাসের বেশি জে’ল হবে না। অ’স্ত্র মা’মলা খেয়েছি, তাতেই ভয় পাচ্ছি না। আর প্রতারণার মা’মলায় কী’ হবে?’—থা*নায় বসেই এভাবে হুঙ্কার ছাড়েন পাপিয়া-সুমন দম্পতি। পাপিয়া তার নরসিংদীর বাসায় এক ব্যবসায়ীকে ধরে নিয়ে গিয়ে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। ওই ব্যবসায়ীর নাম তপন তালুকদার টুকু।

তিনি নিরাপ’ত্তাকর্মী সরবরাহের একটি প্রতিষ্ঠানের মালিক। তপনের কাছ থেকে প্রতারণতার মাধ্যমে প্রায় ৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন পাপিয়া। এ বিষয়ে বিমানবন্দর থা*নায় মা’মলা করা হবে জানালে ওই ব্যবসায়ীকে হুমকি দেন পাপিয়ার স্বামী মতি সুমন।

মা’মলার ত’দন্ত কর্মক’র্তা কায়কোবাদ কাজী বলেন, পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজ লোকজনকে আ’ট’কে রেখে শুধু মুক্তিপণ আদায়ই নয়, মা’দক ব্যবসাও করতেন। তদবির বাণিজ্যের মাধ্যমে অনেক মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। জিজ্ঞাসাবাদে তারা এসব বিষয় স্বীকারও করেছেন।

ত’দন্তের বিষয়ে বিমানবন্দর থা*নার ওসি বিএম ফরমান আলী বলেন, বিমানবন্দর থা*নার এক মা’মলার রি’মান্ডের দ্বিতীয় দিনে ত’দন্ত কর্মক’র্তাদের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন পাপিয়া। তার দেওয়া তথ্যে আম’রা অ’বাক হচ্ছি। ত’দন্তের স্বার্থে এসব বিষয়ে কিছুই বলা যাবে না। পাপিয়ার অ’পকর্মের সঙ্গে ওয়েস্টিন হোটেলের কে কে জ’ড়িত ছিল, তার অ’স্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসায় কারা জ’ড়িত ছিল, তার সঙ্গে পাওয়া জাল টাকার উৎস কী’, কাদের আশ্রয় প্রশয়ে তিনি এ পর্যায়ে এসেছেন সে বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, পাপিয়া ও তার স্বামী এবং দুই সহযোগীর বি’রুদ্ধে বিদেশি মুদ্রা ও জাল টাকার মা’মলা হয়েছে। অ’স্ত্র ও মা’দকের পৃথক মা’মলা হয়েছে শেরে বাংলা নগর থা*নায়।

ওসি বিএম ফরমান আলী বলেন, পাপিয়া ও তার স্বামীর প্রতারণার শিকার কয়েকজন ব্যক্তি এরই মধ্যে থা*নায় অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়ে গেছেন। আম’রা সেসব বিষয়ে ত’দন্ত করছি।

তাদের প্রতারণার শিকার ব্যবসায়ী তপন বলেন, প্রায় পাঁচ মাস আগে আমি ঢাকা থেকে নরসিংদীতে এক বন্ধুর বাসায় যাই। সেখানে পাপিয়ার সঙ্গে আমা’র দেখা হয়েছিল। অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর আমাকে পাপিয়া তার বাড়িতে নিয়ে যায়। এরপর চারজন সুন্দরী নারীকে আমা’র সামনে নিয়ে আসে পাপিয়া। পরে জো’রপূর্বক অশ্লীল ভিডিও দৃশ্য ধারণ করে।

আমাকে হুমকি দিয়ে পাপিয়া বলেন, আপনাকে ১০ লাখ টাকা দিতে হবে। তা না হলে এই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়া হবে। আপনার নামে মানব পাচারের মা’মলা দেওয়া হবে।

এরপর আমাকে মা’রধর শুরু করে সে। সম্মান রক্ষার ভয়ে তাৎক্ষণিকভাবে ২০ হাজার টাকা দিই আমি। তবুও আমাকে তারা আ’ট’কে রাখে। এক পর্যায়ে ব্যাংকের মাধ্যমে ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা দেওয়ার পর আমাকে ছেড়ে দেয়।

তিনি আরও বলেন, পাপিয়ার গ্রে’প্তার হয়েছে জানতে পেরে আমি রাজধানীর বিমানবন্দর থা*নায় যাই। থা*নার ওসিকে এই ঘটনাটি খুলে বলি। আমা’র কথা শোনার পর ওসি সাহেব পাপিয়াকে থা*না হাজত থেকে তার রুমে ডেকে আনেন। পাপিয়ার সামনেই আমা’র ওপর তার নি’র্যাতনের ঘটনা বলি। তখন সে আমা’র কাছে মাপ চায়। ওসির সামনেই পাপিয়া বলেন, আমা’র আসলে ভুল হয়ে গেছে। অন্য আরেকজনের নির্দেশে আমি ওটা করেছিলাম। আপনি আইনের আশ্রয় নিয়েন না। আপনার টাকা ফেরত দেব। কিন্তু আমি এখনো টাকা ফেরত পাইনি।

ওসির রুমে পাপিয়ার স্বামী মফিজকে ডা’কা হলে তিনি হুমকি দিয়ে বলেন, টাকা দেব না। আপনি আমাদের নামে কী’ মা’মলা দেবেন? বড় জো’র প্রতারণার মা’মলা দেবেন। এ মা’মলায় দুই মাসের বেশি জে’ল হবে না। অ’স্ত্র মা’মলা খেয়েছি। তাতেই ভয় পাচ্ছি না। আর প্রতারণার মা’মলায় কী’ হবে?

ব্যবসায়ী তপন বলেন, মা’মলা করতে চাইলে বিমানবন্দর থা*নার ওসি বলেন, আপনি যদি মা’মলা করতে চান, তাহলে নরসিংদীতে গিয়ে মা’মলা দিতে হবে। কেননা, আপনার সঙ্গে ঘটনাটি ঘটেছে নরসিংদীতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: