আজ ২৩শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৭ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দীর্ঘ ১৬ বছর প্রতীক্ষার পর জেলা যুবদলের গুরুত্বপূর্ণ পদে খালিদ – জনতার মিছিল

জামালউদ্দীন ঃ বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়াউর রহমানের হাত ধরে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলা বিএনপি’র জন্ম হয় শহীদ এবিএম আলতাফ হোসেনের হাতে। দীর্ঘ প্রতিক্ষার অবসান ঘটিয়ে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী যুবদলকে সুসংগঠিত করতে শহীদ প্রেসিডেন্টের পুত্র তারেক রহমানের নির্দেশনায় কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সাইফুল আলম নীরব, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দীন টুকু ও সাবেক জেলা বিএনপি’র সভাপতি ২ বারের সাংসদ কেন্দ্রীয় বিএনপি’র প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক হাবিব, সাতক্ষীরা জেলা যুবদলের নবনির্বাচিত সভাপতি আবু জাহিদ ডাবলু, সাধারণ সম্পাদক এইচ.আর মুকুল, তালা উপজেলা বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতার একমাত্র পুত্র মোড়ল খালিদ আহমেদকে জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি নির্বাচিত করায় তালা আপামর মুক্তিকামী মানুষ প্রাণঢালা অভিনন্দন জানিয়েছে। গত ২৩ জুলাই ২০২০ তারিখে এ কমিটির অনুমোদন দেয়ার পর থেকে তালা উপজেলার নিভৃত পল্লীর সাধারণ আমজনতা সন্তুষ্ট প্রকাশ করে এবিএম আলতাফ হোসেনের পুত্র মোড়ল খালিদ আহমেদ তার পিতার অসমাপ্ত কাজ শেষ করবেন বলে আশায় বুক বেধেছেন। শহীদ এবিএম আলতাফ হোসেন ২০০৪ সালের ৪ মে পাটকেলঘাটা বাজারের পাঁচরাস্তা মোড়ে সন্ত্রাসীদের ছুড়ে দেয়া বোমায় নিহত হন। দল গঠনের পর হতে মৃত্যুঅবধি পর্যন্ত তিনি এ উপজেলার সভাপতির দায়িত্বে থেকে অজ¯্র নেতাকর্মী তৈরী করেছিলেন। তিনি তালা উপজেলার প্রথম উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। তালা উপজেলার রাজধানী খ্যাত ৩ নং সরুলিয়া ইউনিয়নের ২ বারের সফল ইউপি চেয়ারম্যান ছিলেন। মোড়ল খালিদ আহমেদকে গুরুত্বপূর্ণ পদে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য দায়িত্ব দেয়ার পর থেকে জন্মভূমি তালার মানুষ তাকে নিয়ে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে। উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের প্রতিটি গ্রাম মহল্লায় এমন কোন ঘর নেই যেখানে শহীদ এবিএম আলতাফ হোসেনের পদচিহ্ন নেই। তালার খলিষখালী, খেশরা, জালালপুর, খলিলনগর, কুমিরাসহ সরুলিয়া ইউনিয়নের একাধিক হিন্দু পরিবারের বয়স্ক ও চলে যাওয়া আলতাফ ভক্তদের পরিবারের সদস্যরা আবারো আশার সঞ্চার দেখছে বলে এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন। একাধিক হিন্দু সম্প্রদায়ের সাধারণ মানুষ এ প্রতিবেদকের নিকট খালিদ আহম্মেদকে গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত করায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সহ কেন্দ্রীয় ও জেলা পর্যায়ের সকল নেতৃবৃন্দকে। সময় অনুকূলে না থাকায় এ প্রতিবেদকের নিকট বারবার নাম প্রকাশ না করার জন্য অনুরোধ করেন। ২০০৪ সালের পর থেকে শহীদ এবিএম আলতাফ হোসেনের শূন্যতা আলতাফ ভক্তদের হৃদয়ে রক্তক্ষরণ থাকলেও তারই সুযোগ্য পুত্রকে নেতৃত্বের জন্য ঘোষণা করায় আবারো রাজপথের সেই মিছিল মুখরিত গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে নিজেদেরকে তৈরী করছে বলে বর্তমান নেতৃত্বে থাকা অনেক নেতাকর্মীই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!