আজ ৮ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

তীব্র ক্ষতির মুখে মাংস ব্যবসায়ীরা: কুলিয়ায় গরুর মাংসের কেজি সাড়ে ৪শ টাকা

মাহমুদুল হাসান শাওন, দেবহাটা: একদিকে মহামারী করোনা ভাইরাসে ব্যবসা বানিজ্যে ধ্বস, অন্যদিকে পবিত্র ঈদুল আযহা আসন্ন হওয়ায় চাহিদা কমেছে গরুর মাংসের। এতে করে সাম্প্রতিক সময়ে তীব্র ক্ষতির মুখে পড়েছেন দেবহাটার কুলিয়াসহ আশপাশের বাজারের মাংস ব্যবসায়ীরা। ফলে ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে ক্রয়মুল্যের তুলনায় অনকেটা লোকসান করেই গরুর মাংস বিক্রি করতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের। মঙ্গলবার দেবহাটার কুলিয়ার মাংসের দোকান গুলোতে দেখা যায় এমন চিত্র। ঘন্টারপর ঘন্টা খরিদ্দার বিহীন দাড়িয়ে থেকে সর্বোচ্চ সাড়ে ৪শ টাকা কেজি দরে গরুর মাংস বিক্রি করছেন কুলিয়া নতুন বাজারের ব্যবসায়ীরা। কিন্তু বিত পনেরদিন আগেও এসব মাংসের দোকানে দেখা যেত ভিন্নচিত্র। সেসময়ে গরুর মাংসের চাহিদা বেশি থাকায় সাড়ে ৫শ টাকা কেজিপ্রতি মাংস বিক্রি করেছেন এসকল ব্যবসায়ীরা। কুলিয়া নতুন বাজারের মাংস ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম জানান, একদিকে মহামারী করোনা ভাইরাস এবং অন্যদিকে কোরবানির ঈদ ক্রমশ সন্নিকটে আসার কারনে চাহিদা কম হওয়ায় মাংস ব্যবসায়ীরা তীব্র ক্ষতির মুখে পড়েছেন। করোনার আগে কুলিয়া নতুন বাজারে প্রতিদিন ৫ থেকে ৬টি গরুর মাংস বিক্রি হলেও, বর্তমানে কোনদিন একটি আবার কোনদিন সর্বোচ্চ দুটি গরুর মাংস বিক্রি করতেই ব্যবসায়ীদের হিমসিম খেতে হচ্ছে। হাট থেকে ২০ হাজার টাকা মন হিসেবে গরু কিনে দোকানে নিয়ে জবাই করে সর্বোচ্চ সাড়ে ৪শ টাকা কেজি দরে অর্থাৎ ১৮ হাজার টাকা মন হিসেবে গরুর মাংস বিক্রি করতে হচ্ছে। তবে পারুলিয়া ও সখিপুর বাজারে চাহিদা বেশি থাকায় সেখানকার মাংস ব্যবসায়ীরা এখনও সাড়ে ৫শ টাকা কেজি দরে গরুর মাংস বিক্রি করতে পারছেন বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: