আজ ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

দেবহাটায় উপ নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে তৃনমুলের জনপ্রিয় মনি- জনতার মিছিল


মাহমুদুল হাসান শাওন: ক্রমেই এগিয়ে আসছে দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপ নির্বাচন। গত ৭ আগষ্ট করোনা ভাইরাস সংক্রমনে দেবহাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল গণি মৃত্যুবরণ করায় শুন্য হয় গুরুত্বপূর্ন এ পদটি। ফলে ওই পদটির আসন্ন উপ নির্বাচন ঘিরে বর্তমানে উপজেলাব্যাপী শুরু হয়েছে তুমুল আলোচনা।
ইতোমধ্যেই উপজেলা চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দীতার ঘোষনা দিয়ে প্রত্যক্ষ পরোক্ষভাবে দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের সাথে মতবিনিময় ও প্রচার প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের একাধিক হাফ ডজন নেতারা।
শুধু প্রচার প্রচারনা কিংবা মতবিনিময় নয়, উপজেলা চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্যও নিয়মিত কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছেন এসকল মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।
তবে মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীদের মধ্যে তৃনমুল নেতাকর্মী ও কাউন্সিলরদের আস্থা অর্জনের মাধ্যমে উপজেলাব্যাপী আলোচনায় রয়েছেন টানা তিনবারের নির্বাচিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনি।
২০০৩, ২০১২ ও সর্বশেষ ২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে পরপর তিন মেয়াদে কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হয়ে সাধারন সম্পাদক হিসেবে টানা ১৭ বছর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিনিধিত্ব করছেন মনিরুজ্জামান মনি। সাতক্ষীরা জেলাব্যাপী রাজনৈতিক মহলে একজন সৎ, দক্ষ ও তুখোড় রাজনীতিবীদ হিসেবেও বেশ সুখ্যাতি রয়েছে তার।
১৯৮৪ সালে সাতক্ষীরা কলেজে পড়াকালীন সময়ে মনিরুজ্জামান মনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। অর্ন্তুভূক্ত হন জেলা ছাত্রলীগের কমিটিতে। পরে ঢাকা কলেজের ছাত্রলীগের মিলনায়তন সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন। সেসময়ে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে বিশেষ ভুমিকা রাখার পাশাপাশি নিজ উপজেলা দেবহাটাতে ছাত্রলীগ গঠনেও তিনি গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখেন। দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে। ১৯৯৫ থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত টানা ৭ বছর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন তিনি।
২০০৩ সালের ২৩ ডিসেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে প্রথমবারের মতো উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন মনি।
দীর্ঘ ৯ বছর দায়িত্ব পালনের পর ২০১২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর আবারো কাউন্সিলরদের প্রত্যক্ষ ভোটে দ্বিতীয় মেয়াদে সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন তিনি।
২০১৩-১৪ সালে জামায়ত-বিএনপির সহিংসতাকালীন সময়েও রাজপথে থেকে নেতাকর্মীদের অনুপ্রেরণা যোগানোর পাশাপাশি তিনি জামায়ত-বিএনপিকে প্রতিরোধের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা করেন।
দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে সংগঠন বিরোধী কিংবা গঠনতন্ত্র পরিপন্থী কোন কর্মকান্ডে জড়িতের অভিযোগ নেই তার বিরুদ্ধে। এমনকি তৃনমুল নেতাকর্মীদের ভোটে প্রথম অবস্থানে থাকা স্বত্ত্বেও ২০১৯ সালের উপজেলা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় সাতক্ষীরার সাতটি উপজেলার মধ্যে কেবলমাত্র তিনিই বিদ্রোহী প্রার্থী হননি।
উপ-নির্বাচন প্রসঙ্গে দেবহাটা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্নুর, ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সুমন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক লোকমান কবীরসহ একাধিক নেতারা বলেন, মনিরুজ্জামান মনি বিগত প্রায় ১৭ বছর ধরে দেবহাটা উপজেলা আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করে রেখেছেন। তিনি একজন সৎ ও স্বচ্ছ ইমেজের মানুষ। দেবহাটার রাজনীতিতে মনির কোন বিকল্প নেই। তিনি আওয়ামী লীগের প্রকৃত একজন কান্ডারী। উপজেলা চেয়ারম্যান পদে মনি দলীয় মনোনয়ন পেলে রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দল যেমন আরোও সুসংগঠিত হবে, তেমনি দেবহাটা একটি উন্নত ও মডেল উপজেলায় রুপান্তরিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: