আজ ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

মৌলভী আব্দুল লতিফ কলেজ কিয়ামত পর্যন্ত বেঁচে থাকবে জন প্রশাসন সচিব ইউসুফ হারুন – জনতার মিছিল

বি এম আলাউদ্দীন, আশাশুনি প্রতিনিধি:
সর্বজন শ্রদ্ধেয় মৌলভী আব্দুল লতিফ আমাদের মাঝে বেঁচে নেই। কিন্তু তার নামে প্রতিষ্ঠিত ‘মৌলভী আব্দুল লতিফ কলেজের নাম কিয়ামত পর্যন্ত মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকবে। আশাশুনির নির্ভত পল্লীতে সুন্দর পরিবেশে গড়ে ওঠা কলেজটি এলাকার শিক্ষা বিস্তারে মাইল ফলক হিসাবে এগিয়ে যাবে সে প্রত্যাশা আমাদের আছে। আম্ফানের তান্ডব ও করোনার আক্রমনের পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে সাতক্ষীরা জেলার দায়িত্ব দিয়েছেন। আমি সাতক্ষীরার মানুষ হয়ে সাতক্ষীরাতে দায়িত্ব পাওয়ায় এখানকার সার্বিক দিক সম্পর্কে অবগত হয়ে উন্নয়ন ও প্রয়োজনীয় কাজ করে আসছি। প্রতাপনগরের ভাঙ্গন কবলিত এলাকা দেখেছি। কিছু ছোট খাট ভাঙ্গনের নির্মান কাজ স্থানীয় ও পাউবো’র উদ্যোগে করা হয়েছে। বড় ভাঙ্গনগুলোর দায়িত্ব সেনাবাহিনীর উপর দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছেন। এডিবির অর্থ দিয়ে নির্মান কাজ সম্ভব নয়। এজন্য বড় আকারের বাজেট করে উপকুলীয় এলাকার টেকসইভেড়ী বাঁধ নির্মানের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। সাতক্ষীরা থেকে পটুয়াখালী পর্যন্ত টেকসই নির্মান কাজের জন্য সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার প্রজেক্ট হাতে নেওয়া হয়েছে। আশাশুনি উপজেলার গদাইপুর মৌলভী আঃ লতিফ কলেজ বন্যা আশ্রয়ন কেন্দ্র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। জন প্রশাসন সচিব আরও বলেন, করোনার কারণে দেশে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন সম্ভব হয়নি। করোনা মোকাবেলায় সরকারের ব্যাপক অর্থ খরচ করতে হচ্ছে। তার পরও সরকার দেশের সকল এলাকার উন্নয়নে সমান তালে কাজ করে যাচ্ছে। সাতক্ষীরার মত রিমোর্ট এলাকা দেশে ২/১ টার বেশি নেই। তাই সাতক্ষীরাকে পরিকল্পিত উন্নয়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। করোনা সময় সাতক্ষীরা জেলা সমিতির পক্ষ থেকে ও প্রবাসীদের সহায়তায় আমরা ২৪ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৪টি ক্যানোলা সাতক্ষীরায় আনিয়েছি। এখানে কোন পিসিআর ম্যাশিন ছিলনা, দেশে আসা দু’টি পিসিআর মেশিনের একটি আমরা সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজে দিয়েছি। এলাকার উন্নয়ন তখন পরিপূর্ণ হবে যখন এলাকার মানুষ সহযোগিতা করে। কলেজের ৩ কোটি ৪৫ লক্ষ টাকা ব্যয় বরাদ্দে নির্মানাধীন ৩ তলা ভবনের কাজের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, কাজ ১০০% আদায় করে নেবেন, এজন্য আপনাদেরকে নিশ্চিত করতে হবে যে, কোন চাঁদাবাজী হবেনা। বন্যা প্রবন ও নদী ভাঙ্গন এলাকায় বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র নির্মান (৩য় পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় মৌলভী আব্দুল লতিফ কলেজে ভবন নির্মান কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন এর শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন। সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোহসিন, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার ড. মু. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, এডিশনাল এসপি শেখ ইয়াছিন আলি, বন্যা প্রবন ও নদী ভাঙ্গন এলাকায় আশ্রয় কেন্দ্র নির্মান (৩য় পর্যায়) শীর্ষক প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ইউসুফ আলী। অনুষ্ঠানে সহকারী কশিনার (ভূমি) শাহিন সুলতানা, আশাশুনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ গোলাম কবির, কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ শাহানারা বেগম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী, প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেন, দরগাহপুর ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মিরাজ আলি, সমাজ সেবক অহিদুল ইসলাম মোল্যা, খাজরার প্যানেল চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

     এই বিভাগের আরও খবর
error: Content is protected !!
%d bloggers like this: